Buscar
05:54h. Lunes, 16 de diciembre de 2019

ছাত্র-সঙঘর্ষে উত্তাল বহরমপুরের কলেজ

সোমবার দুপুরে ছাত্র পরিষদ ও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সঙঘর্ষে উত্তাল হয়ে উঠল বহরমপুর কৃষ্ণনাথ কলেজ চত্বর৷‌ এদিন দু’দলের মধ্যে প্রচণ্ড মারামারি হয়৷‌ ঘটনায় আহত হয়েছে দু’পক্ষের ৮ জন৷‌ তাদের মধ্যে ৬ জনকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷‌ পরিস্হিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামানো হয় র্যাফ৷‌ 

সোমবার দুপুরে ছাত্র পরিষদ ও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সঙঘর্ষে উত্তাল হয়ে উঠল বহরমপুর কৃষ্ণনাথ কলেজ চত্বর৷‌ এদিন দু’দলের মধ্যে প্রচণ্ড মারামারি হয়৷‌ ঘটনায় আহত হয়েছে দু’পক্ষের ৮ জন৷‌ তাদের মধ্যে ৬ জনকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷‌ পরিস্হিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামানো হয় র্যাফ৷‌ বর্তমানে কৃষ্ণনাথ কলেজের সংসদ ছাত্র পরিষদের দখলে৷‌ ঘটনায় কলেজের সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কুণ্ডুর মাথা ফেটে গেছে৷‌ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সমর্থক মতিলাল রশিদের অবস্হাও আশঙ্কাজনক৷‌ দু’পক্ষই পরস্পরের দিকে বহিরাগতদের নিয়ে এসে আক্রমণ চালানোর অভিযোগ তুলেছে৷‌ ছাত্র পরিষদের পক্ষ থেকে থানায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ১১ জনের নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷‌ দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করার দাবি জানিয়েছে ছাত্র পরিষদ৷‌ নইলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনেরও হুমকি দিয়েছে৷‌ ঘটনার পরেই কলেজ এদিন বন্ধ রাখার সিদ্ধাম্ত নেন কলেজ কর্তৃপক্ষ৷‌ তড়িঘড়ি সহকর্মীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন অধ্যক্ষ কল্যাণ ঘোষ৷‌ তিনি বলেন, বৈঠকে সিদ্ধাম্তের পরই গোটা বিষয়টি জেলা পুলিস সুপারকে জানানো হয়েছে৷‌ মঙ্গলবার থেকে কলেজ স্বাভাবিকভাবেই চালানো হবে৷‌ অচলাবস্হার সৃষ্টি হলে তখন সিদ্ধাম্ত নেওয়া হবে৷‌ ঘটনার কারণ আমার জানা নেই৷‌ প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বহরমপুর কলেজে নবীনবরণ অনুষ্ঠান ছিল৷‌ পরদিন সেখানেই কলেজ সোশ্যাল অনুষ্ঠিত হয়৷‌ শুক্রবার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরির উপস্হিতিতেই নবীনবরণ অনুষ্ঠান চলাকালীন কলেজ চত্বরেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে দুই ছাত্র সংগঠন৷‌ শনিবারও সঙঘর্ষে জড়ায় দুই ছাত্র পরিষদের কর্মী-সমর্থকরা, চলে পুলিসের লাঠিচার্জ৷‌ কলেজ নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে, ততই ছাত্র-সঙঘর্ষে উত্তাল হয়ে উঠছে কলেজ চত্বরগুলি৷‌ রীতিমতো আতঙ্কে রয়েছে কলেজের অন্য পড়ুয়ারা৷‌ জানা গেছে, সোমবার ক্যারম খেলাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়৷‌ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অভিযোগ, বহিরাগতদের আড্ডাস্হল হয়ে গেছে কলেজ চত্বর৷‌ ইউনিয়ন রুম থেকে ছাত্রছাত্রীদের খেলার সামগ্রী– সবেতেই তাদের দখলদারি চলছে৷‌ কলেজের পড়ুয়াদের তাতে হাত দিতেই দেওয়া হয় না৷‌ বহিরাগতদের দাদাগিরিতে কলেজ পড়ুয়ারা ভীত হয়ে রয়েছে৷‌ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি রাজা ঘোষ জানান, এদিনের ঘটনার সঙ্গে দলের কোনও যোগ নেই৷‌ কলেজের সম্পত্তিতে ছাত্র পরিষদের বহিরাগতদের দখলদারির বিরুদ্ধে কলেজের পড়ুয়ারা প্রতিবাদ জানিয়েছে৷‌ অথচ পুলিস-প্রশাসনের সঙ্গে দু’দলের বৈঠকে কলেজ চত্বরে বহিরাগতদের প্রবেশ না করার সিদ্ধাম্ত ছাত্র পরিষদ মানছে না৷‌ প্রতিবাদ জানালে কলেজের ছাত্রছাত্রীদের আক্রমণ করা হচ্ছে৷‌ তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার সময় কলেজের পাশ দিয়ে যাচ্ছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ সমর্থক মতিলাল৷‌ সে চিৎকার-চেঁচামেচি শুনতে পেয়ে কলেজে ঢুকে ছাত্রছাত্রীদের বহিরাগতদের আক্রমণ থেকে বাঁচাতে গেলে তাকে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ৷‌ সে বর্তমানে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি৷‌ এদিন কংগ্রেসের পক্ষ থেকে পুলিসের পক্ষপাতমূলক আচরণ ও শাসক দলের হয়ে কাজ করার দাবি তুলে থানায় স্মারকলিপি দেওয়া হয়৷‌ এ জন্য প্রচুর কংগ্রেস কর্মী-সমর্থক শহরের টে‘টাইল মোড়ে উপস্হিত হন৷‌ রাজা ঘোষের দাবি, ওই জমায়েত হওয়া কংগ্রেসিদের কলেজে এনে তৃণমূল সমর্থকদের ওপর আক্রমণ চালানো হয়৷‌ অন্যদিকে, তৃণমূলের অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়েছে ছাত্র পরিষদ৷‌ ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি সফররাজ শেখ রুবেল জানান, কৃষ্ণনাথ কলেজে তৃণমূল ছাত্র পরিষদকে খুঁজেই পাওয়া যায় না৷‌ আসন্ন নির্বাচনে কলেজগুলিতে কোণঠাসা তৃণমূল হেরে যাওয়ার আশঙ্কায় বহিরাগতদের নিয়ে এসে আমাদের মারধর চালাচ্ছে৷‌ কলেজের পড়ুয়ারা আমাদের সঙ্গেই রয়েছে৷‌ তৃণমূলের জেতা অসম্ভব৷‌ এদিন ওরা বহিরাগত লোকজন এনে অতর্কিতে আমাদের ওপরে হামলা চালিয়েছে৷‌ ছাত্রীদেরও বাদ দেয়নি৷‌ দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছি৷‌ পুলিস পক্ষপাত করে শাসক দলের হয়ে কাজ করলে আমরা আগামী দিনে বৃহত্তর আন্দোলনে নামব৷‌