Buscar
15:01h. Jueves, 15 de Noviembre de 2018

পিতৃত্বের পরীক্ষায় স্পেনের প্রাক্তন রাজা কার্লোস

বেলজিয়ামের এক নারী নিজেকে স্পেনের প্রাক্তন রাজা হুয়ান কার্লোসের ঔরসজাত সন্তান বলে দাবি করেছিলেন ২০১২ সালে। 

juan_carlos_i
juan_carlos_i

বেলজিয়ামের এক নারী নিজেকে স্পেনের প্রাক্তন রাজা হুয়ান কার্লোসের ঔরসজাত সন্তান বলে দাবি করেছিলেন ২০১২ সালে। এই দাবির বিষয়টি প্রমাণের জন্য পিতৃত্ব পরীক্ষার ব্যাপারে বুধবার একমত হয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। এখন পিতৃত্বের পরীক্ষার মুখোমুখি স্পেনের বিতর্কিত রাজা কার্লোস।

ইনগ্রিদ সারটিয়াউ নামের ওই নারী দাবি করেছেন, ১৯৬০ সালের দিকে তার মায়ের সঙ্গে রাজা কার্লোর সম্পর্ক ছিল। রাজা কার্লোস সে সময় বিবাহিত ও স্পেনের যুবরাজ ছিলেন। 

এই ঘটনার পর রাজ পরিবারের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা আদালতের স্বাধীনতাকে সম্মান করেন। কিন্তু এ বিষয়ে আর কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান তারা। 

রাজার পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার কারণে এখন ওই মামলা থেকে দায়মুক্তি পাবেন না কার্লোস। তাই মামলার শুনানিও শিগগিরই শুরু হতে পারে বলে মত দেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

২০১২ সালে এই দুই পিতৃত্বের মামলা করা হলেও দেশের রাজা হওয়ার কারণে সে সময় কার্লোসকে দায়মুক্তি দেওয়া হয়। সারটিয়াউর বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন দেশটির কর্মকর্তারা। 

কিন্তু রাজার সন্তান দাবি করা অন্য আরেক নারী আলবার্তো সোলারের মামলাটি বাতিল করে দেন আদালত। ১৯৫৬ সালে বার্সোলোনায় জন্ম নেওয়া সোলার মায়ের সঙ্গে রাজা কার্লোসের সম্পর্ক ছিল। 

হুয়ান কার্লোস এই মামলার জবাব দিতে ২০ দিন সময় পাবেন। সম্ভবত, প্রাক্তন রাজাকে পিতৃত্ব পরীক্ষা করাতে বলা হবে। এমনকি এই মামলার বিষয়ে গণশুনানিও হতে পারে। 

চরম অর্থনীতি মন্দার মধ্যে ব্যয়বহুল হাতি শিকার কার্যক্রম অব্যাহত রাখা, নারী কেলেঙ্কারি ও রাজপরিবারের সদস্যদের দুর্নীতির কারণে রাজা কার্লোসের জনপ্রিয়তার ধস নামে। এরই মধ্যে গত জুনে ছেলে ষষ্ঠ ফিলিপের কাছে ক্ষমতা দিয়ে অবসরে যান কার্লোস। কার্লোসের মেয়ে ক্রিস্টিনার বিরুদ্ধে সরকারি কর ফাঁকি ও দুর্নীতির মামলা চলছে।